প্রধান সূচি

এবার জুসের বোতলে ইয়াবা পাচার

Yaba trafficking in the bottle of juice

সাদামাটা জুসের বোতল। ভেতরে জুসও রয়েছে। বোতলের গায়ে কোম্পানির লেবেল মোড়ানো। সাদা চোখে বোঝার উপায় নেই এই বোতলের ভেতর বিশেষ কায়দায় বহন করা হচ্ছে আড়াই হাজার পিস ইয়াবা।

শনিবার নগরের কর্ণফুলী থানার শাহ আমানত সেতুর টোলপ্লাজা এলাকায় ঢাকাগামী বাসের দুই যাত্রীকে আটকের পর অভিনব কায়দায় ইয়াবা পাচারের এই পদ্ধতি নজরে আসে নগর গোয়েন্দা পুলিশের। এর আগে এ পদ্ধতিতে ইয়াবা পাচারের আর কোনো আসামি ধরা পড়েনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে। এমন অভিনব কায়দায় ইয়াবা পাচার দেখে চোখ কপালে উঠেছে পুলিশ কর্মকর্তাদেরও।

গ্রেফতার দু’জন হলেন- কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার উত্তর সালুয়া গ্রামের হাজীবাড়ির মো. ইউনুছ মিয়ার ছেলে মো. সাগর মিয়া (২৭) ও গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গিমাডাঙ্গা নতুন বাজার গ্রামের মো. সামছু শেখের ছেলে রুহুল আমিন শেখ ওরফে হৃদয় (২৪)। তাদের হাতে থাকা দুটি জুসের বোতল থেকে পাঁচ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (পশ্চিম) মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম জানান, জুসের বোতলের লেবেল খুলে বোতলের নিচে কেটে জুস বের করে ফেলা হয়েছে। এরপর বোতল কিছুটা কেটে বায়ু ও পানি নিরোধক প্যাকেটের ভেতরে ইয়াবা মুড়িয়ে তা বোতলের ভেতর ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এরপর বোতলে জুসগুলো ঢুকিয়ে দিয়ে কাটা অংশটা গাম ও টেপ দিয়ে হালকা করে মুড়িয়ে দেওয়া হয়। যাতে জুস বেরিয়ে না যায়। এরপর লেবেল আবারও বোতলের গায়ে মুড়িয়ে দেওয়া হয়। যাতে বোঝার উপায় নেই এর ভেতর জুস ছাড়া অন্য কিছু থাকতে পারে। এ দু’জন এর আগেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখে ধুলো দিয়ে একই পদ্ধতিতে ইয়াবা পাচার করেছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে ঢাকার উত্তরা পশ্চিম থানায় মাদকের মামলা রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে কর্ণফুলী থানায় মামলা করা হয়েছে।