প্রধান সূচি

বানারীপাড়ায় গোলাম সারওয়ারের প্রথম জানাজায় মানুষের ঢল

শ্রাবনের শেষদিনে আকাশে ছিল রোদ-বৃষ্টির লুকোচুরি। সন্ধ্যা তীরের বানারীপাড়াবাসী বুধবার দুপুর থেকে অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় ছিল পৌর শহর সংলগ্ন জম্বুদ্বীপ হ্যালিপ্যাডের চারপাশে। সবার চোখেমুখে ছিল চাপা কষ্টের ছাপ। অবশেষে বেলা ২টা ২৩ মিনিটে বানারীপাড়াবাসীর শ্রদ্ধা ও ভালবাসার মুখ সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণ করে।

চারপাশে জমায়েত হওয়া হাজারো মানুষের ভেতর তখন পড়ে যায় কান্নার রোল। বানারীপাড়াবাসীর গভীর ভরসার মানুষ গোলাম সারওয়ারের মরদেহ ঢাকা থেকে নিয়ে আসেন তার জামাতা মিয়া মো. নাইম হাবিব ও বড় ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জন।

হ্যালিপ্যাডে মরদেহবাহী কফিন গ্রহণ করেন সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের ভ্রাতাপুত্র গোলাম কিবরিয়া সৈকত ও স্বজন মো. বাবু মোল্লা, মেহেদি হাসান উজ্জল, মনির হোসেন মল্লিক, মো. হারুন ও মো. আউয়াল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল-২ (বানারীপাড়া-উজিরপুর) আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস, উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলম, আওয়ামী লীগ নেতা ফাইয়াজুল হক রাজু এবং বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম সারওয়ারের ছোট ভাই গোলাম সালেহ মঞ্জু মোল্লা ও সাধারণ সম্পদক মাওলাদ হোসেন সানা।

পরে সম্পাদক গোলাম সরওয়ারের মরদেহবাহী কফিন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়া হয় বানারীপাড়া সরকারি মডেল ইনস্টিটিউশন মাঠে। সেখানে হাজার মানুষ অপেক্ষা করছিলেন প্রিয়মুখ গোলাম সারওয়ারের জানাজায় অংশ নেওয়ার জন্য।

জানাজার আগে জেলা পুলিশের একটি চৌকশ দল বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারওয়ারকে রাষ্ট্রীয় অভিবাবদন জানায়। তখন বিউগলে বেজে ওঠে করুন সুর।

Golam-Sarwar-2

বিকাল ৩টার দিকে বানারীপাড়া সরকারি মডেল ইনস্টিটিউট মাঠে অনুষ্ঠিত জানাজায় অংশ নেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস এমপি, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারন সম্পাদক সংসদ সদস্য শেখ টিপু সুলতান, বরিশাল সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নুরুজ্জামান, পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম, বঙ্গবন্ধু পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ (বীর বিক্রম), গোলাম সারওয়ারের জামাাতা মিয়া মো. নাইম হাবিব ও বড় ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জন, বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু, বানারীপাড়ার উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক, বাবুগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান সরদার খালেদ হোসেন স্বপন, উজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম, বানারীপাড়া আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম সালেহ মঞ্জু মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মাওলাদ হোসেন সানা, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলম, আওয়ামী লীগ নেতা ফাইয়াজুল হক রাজু, বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন সেরনিয়াবাত, বানারীপাড়া থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মল্লিক, বন্দর কমিটির সভাপতি মজিবুর রহমান, বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মৃধা, বিএনপি নেতা গোলাম মাহমুদ মাহাবুব মাষ্টার, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মন্টু লাল কুন্ড, ইউপি চেয়ারম্যান খিজির সরদার, আব্দুল জলিল ঘরামী, আব্দুল মন্নান, সাইফুল ইসলাম শান্ত, শহীদুল ইসলাম, জিয়াউল হক মিন্টু, আওয়ামী লীগ নেতা মাহামুদ হোসেন মাখন, স্বরুপকাঠী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো.আব্দুল হামিদ, সম্পাদক অ্যাডভোকেট এস এম ফুয়াদ, উপজেলা চেয়ারম্যান মো.ওয়াহিদুজ্জামান, পৌর মেয়র মো. গোলাম কবির, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম মুইদুল ইসলাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার কাজী সাখাওয়াত হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান লাভলু আহম্মেদ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম সিকদার, কাজী সাইফুদ্দিন তৈমুর, কাউন্সিলর মো. নুরুল ইসলাম, জাহীদুল ইসলাম বিপ্লবসহ কয়েক হাজার মানুষ।

জানাজায় সমকাল কর্তৃপক্ষের পক্ষে অংশ নেন সমকালের সহযোগী সম্পাদক সবুজ ইউনুস ও বিশেষ প্রতিনিধি সাব্বির নেওয়াজ। এছাড়াও সমকালের খুলনার ব্যুরো চিফ মামুন রেজা, যশোর অফিস প্রধান তৌহিদুল ইসলাম এবং ভোলা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠী, বরগুনা ও পিরোজপুরের জেলা-উপজেলা প্রতিনিধিরাও জানাজার নামাজে শরীক হন। জানাজার নামাজে ইমামতি করেন বানারীপাড়ার উত্তরপাড় জামে মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা আমজাদ হোসেন।

জানাজার আগে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস এবং গোলাম সারওয়ারের পরিবারের পক্ষ থেকে তার ছোট ভাই গোলাম সালেহ মঞ্জু মোল্লা ও বড় ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জন।

জানাজা শেষে গোলাম সারওয়ারের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে এমপি তালুকদার মো. ইউনুস, শেখ টিপু সুলতান এমপি, বরিশাল সিটি করপোরেশণের নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নুরুজ্জামান, বানারীপাড়া পৌরসভার মেয়র সুভাষ চন্দ্র শীল এবং বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাচ্ছাসেবকলীগ সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও গোলাম সারওয়ারের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বানারীপাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বানারীপাড়া ডিগ্রী কলেজ, বানারীপাড়া বালিকা বিদ্যালয়, বানারীপাড়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, বরিশাল প্রেসক্লাব, বানারীপাড়া প্রেসক্লাব, গৌরনদী প্রেসক্লাব, আগৈলঝাড়া প্রেসক্লাব, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, বরিশাল সুহৃদ সমাবেশ, বানারীপাড়া সরকারি ইউনিয়ন মডেল ইনস্টিটিউশন, চাখার সরকারি ফজলুল হক কলেজ, ইত্তেফাকের বরিশাল ও পিরোজপুর অফিস, বরিশালের দৈনিক আজকের পরিবর্তন, বানারীপাড়া সমকাল সুহৃদ সমাবেশ, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষনা পরিষদ, পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা সমকাল পরিবার, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সুহৃদ সমাবেশসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

জানাজা নামাজ এবং শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের মরদেহবাহী কফিন নিয়ে হেলিকপ্টার বিকাল ৩টা ৪০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে বানারীপাড়া ত্যাগ করে।

বুধবার রাতে মরদেহ রাখা হবে বারডেমের হিমঘরে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় গোলাম সারওয়ারের মরদেহ নিয়ে আসা হবে তার প্রিয় কর্মস্থল সমকাল কার্যালয়ে। এখানে সহকর্মীদের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

এরপর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সমকাল সম্পাদকের মরদেহ সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধার জন্য রাখা হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। শ্রদ্ধা জানানোর পর সেখান থেকে দেশবরেণ্য এই সাংবাদিকের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে জাতীয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে। দীর্ঘ কর্মময় জীবনের অনেকটা সময় তিনি কাটিয়েছেন তার এই প্রিয় প্রতিষ্ঠানে। সংবাদকর্মীরা সেখানে গোলাম সারওয়ারের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। বাদ জোহর তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বাদ আসর মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন তিনি।

নিউমোনিয়া ও ফুসফুসের সংক্রমণ ঘটার পর ২৯ জুলাই রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হন সম্পাদক পরিষদের সভাপতি গোলাম সারওয়ার। অবস্থার অবনতি হলে ৭৫ বছর বয়সী এই সাংবাদিককে ৩ আগস্ট সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ২৫ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

মঙ্গলবার রাত ১০টা ৫০ মিনিটে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে দেশে আনা হয় সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের মরদেহ। বিমানবন্দরে শোকার্ত সহকর্মী-স্বজনরা তার কফিন গ্রহণ করেন।