প্রধান সূচি

পিরোজপুরে হাত-পা ও মুখ বাঁধা নারী সংবাদকর্মী উদ্ধার

SB-Pic-600X400

পিরোজপুরে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় এক নারী সংবাদকর্মীকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত ওই গৃহবধুর নাম নিপা আক্তার (৩০)। সে নাজিরপুর উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের চরখালী গ্রামের নাসির শেখের স্ত্রী।

পিরোজপুর সদর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মো. সামিউল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে টহলে থাকা অবস্থায় ওই নারীকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষন একাডেমীর বিপরীত দিকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অচেতন অবস্থায় দেখতে পাই। পরে তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপতালে চিকিৎসাধীন ওই নিপা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, তিনি ঢাকায় একটি বেসরকারী টেলিভিশনের সাংবাদকর্মী হিসাবে কাজ করা কালে নাসির শেখের সাথে পরিচয় হয়। তখন সে নিজেকে সেনাবাহিনীর মেজর পরিচয় দেয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিছুদিন পরে তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের কিছু দিন পর নাসির ভুয়া মেজর পটরিচয় দিয়েছে বলে জানতে পারেন ওই নারী। বিয়ের পর স্বামী নাসির শেখ তার কাছ থেকে ৮ লাখ টাকা যৌতুক নেয় এবং আরো যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে। এ ঘটনায় তিনি গত ১১জুলাই স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতন ও গর্ভের সন্তান নষ্ট করার অভিযোগে নাজিরপুর থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় গত ২৮ জুলাই স্বামী নাসির শেখকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে জামিনে এসে এ ঘটনার জের ধরে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বামী নাসিরের নেতৃত্বে লোকমান, শরীফ ও তার ভাই হাসান পিরোজপুর থেকে তাকে অপহরন করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে আটক রাখে। পরে হাত-পা ও চোখ বেধে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম জিয়াউল হক জানান, ওই মহিলা অসুস্থ থাকায় এখানো কোন মামলা দায়ের করতে পারেন নি।