প্রধান সূচি

নিউমার্কেটে ফাস্টফুডের নামে এসব কী বিক্রি হচ্ছে

রাজধানীর নিউমার্কেটে ফাস্টফুডের ৮টি দোকানে অভিযান চালিয়ে পচা-বাসি খাবার জব্দ করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুধু পচাই নয়; এসব খাবারে তেলাপোকা থেকে শুরু করে নানা ধরনের পোকার অস্তিত্বও পেয়েছেন আদালত। এ জন্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে চার লাখ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ রোববার চালানো এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মসিউর রহমান।

পৃথক অভিযানে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত বনানীর সুপার সপ স্বপ্নতে অভিযান চালিয়ে ১০ লাখ টাকা ও একটি খেজুর আমদানি প্রতিষ্ঠানকে ৮ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।

পুলিশ জানায়, অভিযানের শুরুতেই ক্যাপিটাল ফাস্টফুড নামে একটি দোকানের ফ্রিজে আপেলের টুকরা পাওয়া যায়। যেগুলোর ভেতর তেলাপোকা হাঁটাহাঁটি করছিল। একই দোকান থেকে ফাঙ্গাস পড়ে থাকা পচা কাবাব উদ্ধার করা হয়। এর পর একে একে সৈকত, আল আমিন, প্যানজি, ক্যাপরি, অ্যারোমা কিংস, ফুড পার্ক ও ওয়েস্টার্ন ফুড নামে ফাস্টফুডের দোকানে অভিযান চালিয়েও বাসি খাবার জব্দ করা হয়।

ফুড পার্ক নামের দোকানে অভিযানের শুরুর দিকে কাচের শেলফে হাতেগোনা কয়েকটি চিকেন বন সাজানো পাওয়া যায়। দোকানে থাকা ফ্রিজও খালি ছিল। এ অবস্থা দেখে ম্যাজিস্ট্রেট মসিউর রহমান গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এই দোকানেই সবচেয়ে বেশি পচা-বাসি খাবার রয়েছে। অভিযানে থাকা পুলিশ সদস্যরা তল্লাশি শুরু করেন। এর পরই সিলিংয়ের ওপর একটি পর্দা সরাতেই চোখে পড়ে স্তূপ করে রাখা নানা ধরনের বাসি খাবার।

ম্যাজিস্ট্রেট মসিউর রহমান বলেন, দোকানগুলো দীর্ঘদিন ধরেই পচা-বাসি খাবার বিক্রি করছিল। তারা অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি করে। নিজেদের দোষ স্বীকার করায় ৮টি প্রতিষ্ঠানকে চার লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

স্বপ্নকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা :
রোববার দুপুরে বনানী ১১ নম্বর সড়কের সুপার শপ স্বপ্নকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম বলেন, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার মজুদ করে রাখা হয়েছিল। এ ছাড়া একটি কক্ষে ৩-৪ মাস আগের মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য পাওয়া যায়। মেয়াদ টেম্পারিং করে সরবরাহ করা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৩শ’ কোমল পানীয়ের ক্যান জব্দ করা হয়। ওজন করে রাখা পেঁয়াজের প্যাকেটেও কম পাওয়া যায়। এ ছাড়া সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত মূল্য অমান্য করে ৫৫০ টাকা কেজি গরু মাংস বিক্রি করে ওই প্রতিষ্ঠানটি। এসবের দায়ে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

একই দিন বনানী ১২ নম্বর সড়কের বাহাস ট্রেডিং নামে খেজুর আমদানি করা একটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে নষ্ট খেজুর রাখার দায়ে ৮ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। নষ্ট হওয়া ১২০ মণ খেজুর ধ্বংস করা হয়।

ডিএনসিসির ভ্রাম্যমাণ আদালত:
এদিকে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে গুলশান, বনানী ও মহাখালীর কাঁচাবাজারগুলোতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের দুটি ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালান। অভিযান চলাকালে মূল্য তালিকা না থাকায় এবং নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি করায় গুলশান-২ এর তিনটি মাংসের দোকান, তিনটি মুদি দোকান ও চারটি সবজি দোকান এবং বনানীর চারটি সবজি দোকান ও তিনটি মুদি দোকানকে ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে গুলশান-২ ও বনানী কাঁচাবাজার এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহফুজুল হক মাসুমের নেতৃত্বে কারওয়ান বাজার ও কলমিলতা মার্কেটে অভিযান চালানো হয়।